May 20, 2022

ফেনীতে বৃষ্টির জন্য ইস্তিস্কার নামাজ আদায়, নামাজ শেষেই বৃষ্টি শুরু

বৃষ্টির জন্য আল্লাহর রহমত কামনা করে নামাজ আদায় হয়েছে ফেনীর মাথিয়ারায়।

আজ শুক্রবার জুমার নামাজের পর তোফাজ্জল হুসাইন জামে মসজিদ সংলগ্ন মাঠে এ নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে ইমামতি করেন মুফতি মোহাম্মদ আলী।

নামাজের ভিডিও সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। ভিডিওতে দেখা যায়, মুফতি মোহাম্মদ আলী মুসল্লিদের নামাজের বিষয় বুঝিয়ে দিচ্ছেন। নামাজের আগে তিনি মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বয়ানে বলেন, বৃষ্টির জন্য নামাজ ঈদের নামাজের মতই হবে দুই রকাত, নামাজ শেষে মুনাজাত হবে।

নামাজ ও মুনাজাত শেষে দেখা যায় মুসল্লিরা খুশিতে তাকবির দিচ্ছেন। কারন তাদের সেই রহমতের বৃষ্টি ইতিমধ্যে চলে এসেছে।

ভিডিওতে এক মুসল্লি বলেন, আমরা কিছুক্ষণ আগে বৃষ্টির জন্য নামাজ পড়লাম, আল্লাহ আমাদের দোয়া কবুল করেছেন, নামাজ শেষে এখন আমরা বৃষ্টিতে ভিজতেছি আলহামদুলিল্লাহ।

আরো পড়ুন-দাওয়াতের মাধ্যমে মানুষের মাঝে দীনের প্রেরণা যোগান: আল্লামা মাহমুদুল হাসান

দাওয়াত দিলে ইলেম লাগবে। তরিকা লাগবে। এজন্য মাদরাসা বানান। মাদরাসা বানিয়ে তাদের ইলম শিখান। কুরআন শিখান। হাদিস শিখান। তাদের মাধ্যমে তাদের পরবর্তী প্রজন্মকে শিখান।

এভাবে ধারাবাহিকভাবে দাওয়াতের মাধ্যমে, ইলেমের মাধ্যমে সব শ্রেনির মানুষের মাঝে দীনের প্রেরণা যোগান। তারা নিজেরাই তখন আমল করবে। গুনাহ ছাড়বে। এভাবে একদিন আমাদের প্রবলতা আসবে।

আজ শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) জুমার বয়ানে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী মাদরাসা মসজিদে এসব কথা বলেন বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও আল হাইয়াতুল উলইয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মুহিউস সুন্নাহ আল্লামা মাহমুদুল হাসান।

আল্লামা মাহমুদুল হাসান আরও বলেন, ‘বাবারা তোমাদের হাতে পায়ে ধরি, তোমরা আলেম হও, আলেম হয়ে রাজনীতি করো ৷ জিহাদ করা আগে শিখো, তারপর জিহাদের প্রস্তুতি নেও, একটা কেন্দ্র বানাও যেখান থেকে জিহাদ করবে ৷ এমনি প্রস্তুতি ছাড়া কী করতে পারবা? জিহাদের অধ্যায় পড়ো ভালো করে।’

তিনি বলেন, আমি সরকারকে বলবো নিরীহ আলেমদের ছেড়ে দিন। কেউ অপরাধী হয়ে থাকলে তার সাথে ইনসাফের বিচার করুন। আপনাদের কাছে অনুরোধ করি, গরীব ছাত্রদের ছেড়ে দিন। এরা কুরআন পড়তো। এবার কুরআন পড়তে পারছেনা ৷ আল্লাহর যাতের উপর বিশ্বাস রাখুন। তাদের মুক্ত করে দিন।

তিনি বলেন, আল্লাহর নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, যদি জবান ঠিক থাকে তাহলে আবার উম্মতকে আমি সাফায়াত করে জান্নাতে নিয়ে যাব। নবিজি বলেন, আমি জাহান্নামে উঁকি দিয়ে দেখি! আমার উম্মতের অধিকাংশই জবানের কারণে জাহান্নামে আছে। তোমরা হাদিসের কথা বলো।

কোরআনের কথা বলো। বাবারা তোমাদের পায়ে ধরি, এক হাদিসকে আরেক হাদিসের সাথে জোড়া লাগায়ো না। এক ঘটনাকে আরেক ঘটনার সাথে মিলিয়ে দিও না। স্থান-কাল-পাত্র বুঝে হেকমতের সাথে এগিয়ে যাও। তা না হলে আমাদের এই সুন্দর দেশ কাফের-বেদ্বীনদের ঘেরাওর মধ্যে চলে আসবে।

তিনি বলেন, তোমরা আগে ভালো আলেম হও। তারপর মানুষের সামনে কথা বলো।

তিনি বলেন, ইদানিং আমার একটি সিদ্ধান্ত বেরিয়েছে। সিদ্ধান্তটি আমার নয়। আমি আলেমদের নিয়ে করেছি। হাসপাতালে মিটিং করে বলেছি, ছাত্ররা তোমরা লেখাপড়া করো। ভালো আলেম হও। তারপর রাজনীতি করো।

এ সময় নিজের ছাত্র জীবনের ঘটনার কথা উল্লেখ করে আল্লামা মাহমুদুল হাসান বলেন, দেখো! আমরা এখন দু-চার কথা বলছি তোমাদের সামনে। আমার জীবনে, আমার মনে হইতেছে না, আমি চারজন ছাত্রের সামনে দাঁড়িয়ে কখনো কথা বলেছি। কিন্তু এখন আল্লাহ তায়ালা অনেক মানুষের সামনে কথা বলার সুযোগ দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, সারা পৃথিবী এখন অন্যদের দখলে। এটা আমাদের গাফলতি ও উদাসীনতার কারণে। আমাদের অনৈক্যের কারণে। আমাদের প্রতি অনাস্থার কারণে। ভুল ব্যাখ্যার কারণে। একজন ওলি একটা ভালো কথা বলেন। তোমরা সেটার গলদ অর্থ করো। মুরুব্বিদের প্রতি তোমাদের শ্রদ্ধা নেই। ছোটোদের মহাব্বাত নেই। একজন আরেকজনকে উপকার করবো এটা আমাদের মাঝে নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.