May 26, 2022

ইভ্যালিসহ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে পণ্য দিতে হবে ১০ দিনের মধ্যে

ইভ্যালি-আলেশা মার্টসহ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে এখন থেকে সর্বোচ্চ ১০ দিনের মধ্যে গ্রাহককে পণ্য সরবরাহ করতে হবে। বিভিন্ন ই কমার্স সাইটের পণ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে সময় নির্দিষ্ট করে দিতে যাচ্ছে সরকার। গ্রাহক অন্য কোনো শহরে থাকলে বা তিনি গ্রামের হলে সময় নেয়া যাবে সর্বোচ্চ ১০ দিন। তবে বিক্রয়ের জন্য প্রদর্শিত পণ্যের সম্পূর্ণ মুল্য পরিশোধের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানকে ওই পণ্য ডেলিভারিম্যান বা ডেলিভারি সংস্থার কাছে হস্তান্তর করতে হবে। আর বিষয়টি ক্রেতাকে টেলিফোনে, ই-মেইলে কিংবা এসএমএসের মাধ্যমে জানিয়ে দিতে হবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে একটি নীতিমালা করতে যাচ্ছে, যাতে বলা আছে, কোনো গ্রাহক পণ্য অর্ডার করলে তাকে একই শহরে হলে পাঁচ দিনের মধ্যেই তা সরবরাহ করতে হবে। এই ধরনের নির্দেশনা রেখে দেশে ডিজিটাল কমার্স (ই-কমার্স) পরিচালনা সংক্রান্ত নীতিমালা-২০২১ চূড়ান্ত করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। শিগগিরই নির্দেশনাটির আইনগত পরীক্ষা-নিরীক্ষা বা ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। সেখান থেকে নীতিমালাটি চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে মন্ত্রিসভায়।

বাংলাদেশে গত কয়েক বছরে বেশ কিছু এমন ই-কমার্স সাইট তৈরি হয়েছে, যেগুলো গ্রাহকদের অবিশ্বাস্য ছাড় দিয়ে পণ্য বিক্রি করছে। তবে কোম্পানিগুলোকে আগে টাকা পরিশোধ করতে হয় এবং একটি নির্দিষ্ট সময় পর পণ্য সরবরাহ করা হয়। তবে টাকা নিয়েও পণ্য সরবরাহে বারবার সময়ক্ষেপণের অভিযোগ আছে। আবার তাদের ব্যবসার কৌশলটিও স্পষ্ট নয়। এ কারণে নানা সন্দেহ-সংশয় আছে জনগণের মধ্যে।

এ পরিস্থিতিতে গত ২৪ জুন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ই-কমার্স নিয়ে একটি বৈঠক হয়। সেখানে সিদ্ধান্ত হয়, কোনো প্রতিষ্ঠান পণ্য পৌঁছে দেয়ার আগে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা পাবে না। ক্রেতার অর্ডার করা পণ্য হাতে না পাওয়া পর্যন্ত ওই পণ্যের পেমেন্ট সংশ্লিষ্ট বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টে জমা হবে না। এ জন্য পণ্য অর্ডারের বিপরীতে পরিশোধিত টাকা বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কিত এবং সরকার অনুমোদিত মিডলম্যান প্রতিষ্ঠানের কাছে টাকা জমা থাকবে।

অর্ডার করা পণ্য ক্রেতা হাতে পাওয়ার পর ডেলিভারিম্যানের কাছে দেয়া সইযুক্ত রিসিভ কপি জমা দিলেই পণ্য সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে টাকা ছাড় হবে। এটি বাংলাদেশ ব্যাংকের গেটওয়ে সিস্টেম ব্যবহারের মাধ্যমে করা হবে। এর মধ্যে এবার পণ্য কত দিনের মধ্যে পরিশোধ করতে হবে, সেটিও নির্দিষ্ট করে দিতে চাইছে সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.